মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ১১ আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ,৫ মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

ধর্ম সম্পর্কে ইমামদের সঠিক বয়ান দিতে হবে : হাইকোর্ট

AmaderIslam.COM
এপ্রিল ৩, ২০১৭
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট : ধর্ম সম্পর্কে ইমামদের সঠিক বয়ান দেওয়ার অনুরোধ করেছেন হাইকোর্ট। ব্লগার রাজীব হায়দার হত্যাকাণ্ডের বিচারিক আদালতে দণ্ডের আপিলের রায় ঘোষণার সময় রায়ের পর্যবেক্ষনে আদালত এ কথা বলেন। এছাড়া সন্তানদের প্রতি অভিভাবকদের দায়িত্ব বিষয়ে বেশকিছু পর্যবেক্ষণ দেন আদালত।

আদালত বলেন, ‘মসজিদের ইমামের কাজ মুসল্লিদের নামাজ পড়ানো এবং ইসলাম সম্পর্কে সঠিক ধারণা দেওয়া। তিনি এমন কোনও বয়ান দিতে পারেন না যা দেশের আইনের পরপন্থী। যদি কেউ ইসলাম ও মহানবী (সা.) সম্পর্কে বিরুপ বক্তব্য দেয় অথবা ফেসবুকে পোস্ট করে তবে তার বিচার প্রচলিত আইনে হবে। আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়ার অধিকার কারোর নেই।’
আদালত বলেন, রাজীব হায়দার হত্যাকাণ্ড দুটো গ্রুপ কাজ করেছে। একটি ইনটেল গ্রুপ আরেকটি এক্সিকিউশন গ্রুপ। হত্যাকাণ্ডটি ছিল পূর্বপরিকল্পিত। সে কারণে বিচারিক আদালতের রায় পরিবর্তন করতে কিছু খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে সেই রায়ই বহাল থাকলো। ব্লগার রাজীব হত্যা মামলার আপিলের রায় ঘোষণাকাল বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো জাহাঙ্গীর হোসেন একথা বলেন।

আদালত বলেন, শরিয়া আইন আমাদের দেশে প্রচলিত কিনা এ নিয়ে সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্ত আছে। এ মামলার আসামি মুফতি জসিম উদ্দিন বাদে বাকি সবাই মেধাবী শিক্ষার্থী উল্লেখ করে আদালত বলেন, ‘এই শিক্ষার্থীরা কেন এই পথে গেল তা এ মামলার মাধ্যমে আমরা খুঁজে পাইনি। তবে এ ধরনের মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিপথে যাওয়ার জন্য অভিভাবকরাই দায়ী। এ মামলায় দেখা গেছে, প্রত্যেক আসামির অভিভাবকরা উচ্চ শিক্ষিত ও প্রভাবশালী। আমরা বর্তমান সময়ে নিজেদের লাইফস্টাইল কিভাবে উন্নত করা যায় সেটা নিয়েই ব্যস্ত থাকি কিন্তু আমাদের সন্তানদের মানসিক অবস্থার কথা, তারা কি করতে চায়, কোন বিষয়ে পড়াশোনা করতে চায় সেগুলো না জেনেই মনের বিরুদ্ধে যে কোনও সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেই।’

আদালত মনে করেন, এসব বিষয়ে অভিভাবকদের পরেই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে হবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের। দেশের সবাইকে সরকারের পাশাপাশি শিশুশিক্ষা বিষয়ে চিন্তা করতে হবে। আমাদের পরিবেশ রাজনীতি ধর্মীয় আচার ব্যবহার এবং স্বাধীনতার ইতিহাস সম্পর্কে শিশুকে জানাতে হবে।
মুফতি জসিমউদ্দিন যেখানে খুতবা দিয়েছেন সেখানকার ‍মুসল্লিদের প্রসিকিউশনে আনা হয়নি বিধায় আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে আদালত বলেন, সবধরনের মামলায় এমন কর্মকর্তাদের নিয়োগ দিতে হবে যারা নিজেদের কথা চিন্তা না করে দেশের কথা চিন্তা করে।